সুনামগঞ্জে বীরপ্রতীক খেতাব প্রাপ্তদের সংর্বধনা দিলেন জেলা প্রশাসক - Ekushey Media bangla newspaper

Breaking News

Home Top Ad

এইখানেই আপনার বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ: 01915-392400

নিউজের উপরে বিজ্ঞাপন

Sunday, 15 December 2019

সুনামগঞ্জে বীরপ্রতীক খেতাব প্রাপ্তদের সংর্বধনা দিলেন জেলা প্রশাসক


এনামুল কবির মুন্না, সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:>>>
মুক্তিযোদ্ধের বীরপ্রতীক খেতাব প্রাপ্ত দোয়ারাবাজার উপজেলার টেংরাটিলা গ্রামের বীরপ্রতীকের নিজ বাড়িতে গিয়ে সংর্বধনা দিলেন সুনামগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসক মোহামম্মদ আব্দুল আহাদ। খেতাব প্রাপ্তি মুক্তিযোদ্ধা বীরপ্রতীক প্রকৌশলী আব্দুল হালিম,ও বীরপ্রতীক আব্দুল মজিদ।

বিজয় দিবস উপলক্ষে রোববার (১৫ ডিসেম্বর)  বিকালে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বীরপ্রতীক প্রকৌশলী আব্দুল হালিম ও বীরপ্রতীক আব্দুল মজিদকে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ ফুলের শুভেচ্ছা ও উপহার সামগ্রী তুলে দেন দদুই বীরপ্রতীকের হাতে।
এর পূর্বে দোয়ারাবাজার উপজেলার লক্ষীপুর ইউনিয়নের ঝিরাগাঁও গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা কাঁকন বিবি বীর প্রতীক এর কন্যা সখিনাকে বিজয় দিবসের ফুলেল শুভেচ্ছা ও উপহার প্রদান করেন।গত (১৩ ডিসেম্বর)বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ ইদ্রীছ আলী বীর প্রতীক এর সাথে তাঁর বাসভবনে গিয়ে ফুলের শুভেচ্ছা জানান জেলা প্রশাসক।
শুভেচ্ছা প্রদানকালে বীর মুক্তিযোদ্ধা এম.এ হালিম বীর প্রতীক এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল মজিদ বীর প্রতীক মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। স্বাধীনতার দীর্ঘ ৪৮ বছর পর সরকারের পক্ষে জেলা প্রশাসক স্বয়ং বাড়ি এসে বিজয় দিবসের পূর্বক্ষণে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানোর জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তাঁরা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন।
জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ যথাযথ সম্মান পাচ্ছেন ও মূল্যায়িত হচ্ছেন। তাঁরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তাঁরা বলেন, মাননীয় প্রধামন্ত্রীর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে।
জেলা প্রশাসন, সুনামগঞ্জ কর্তৃক বিজয় দিবসের পূর্বক্ষণে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়িতে গিয়ে শুভেচ্ছা বিনিময়ের এই উদ্যোগকে তাঁরা স্বাগত জানান এবং বলেন এই উদ্যোগ আগামী প্রজন্মের নিকট আদর্শ ও অনুসরণীয় হয়ে থাকবে। একই সাথে তাঁরা জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে আজীবন কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
এসময় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী, দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ডা: মো: আব্দুর রহিম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, দোয়ারাবাজার জনাব সোনিয়া সুলতানা, সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মো: রিফাতুল হকসহ স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক ও স্থানীয় লোকজন উপস্থিত ছিলেন।





একুশে মিডিয়া/এমএসএ

No comments:

Post a comment

নিউজের নীচে। বিজ্ঞাপনের জন্য খালী আছে

Pages