চৌদ্দগ্রামে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের পর পালানোর সময় ধর্ষক আটক - Ekushey Media bangla newspaper

Breaking News

Home Top Ad

এইখানেই আপনার বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ: 01915-392400

নিউজের উপরে বিজ্ঞাপন

Saturday, 15 February 2020

চৌদ্দগ্রামে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের পর পালানোর সময় ধর্ষক আটক



এম এ হাসান, কুমিল্লা:>>>
কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ১নং কাশিনগর ইউপি'র জয়মঙ্গল পুর মধ্যম পাড়ায় সৌদিআরব প্রবাসী স্ত্রীকে গোয়াল ঘরে রশি দিয়ে বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় উপজেলার জয়মঙ্গলপুর মধ্যম পাড়ার সৌদি আরব প্রবাসী শাহ্ জালাল এর স্ত্রীকে একই গ্রামের দক্ষিণ পাড়ার সুলতান মিয়ার ছেলে আমির হোসেন(৪৫) জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।
১৫ই ফেব্রুয়ারী শনিবার আনুমানিক দুপুর ১২ টার দিকে এক ঘটনাটি ঘটে। খোঁজ নিয়ে জানা যায় ধর্ষক আমির এলাকায় গোয়ালীয়ার কাজে নিয়োজিত সে সুবাদে দীর্ঘ দিন আমির শাহ্ জালালদের বাড়ি থেকে তাদের গাভীর দুধ ক্রয় করে নিয়ে যাতো। আমির প্রতিদিনের মতো স শাহ্ জালালদের বাড়ীতে গাভীর দুধ নিতে আসে ,এক পর্যায়ে প্রবাসী শাহ্ জালাল এর স্ত্রীকে গাভীর দুধ মাপার কথা বলে গোয়াল ঘরে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে,ব্যর্থ হয়ে শাহ্ জালাল এর স্ত্রীর মুখ গামছা দিয়ে এবং হাত-পা গোয়াল ঘরে থাকা রসি দিয়ে বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে,এই লম্পট আমির অসহায় নারীটিকে ধর্ষণ করেও ক্ষান্ত হননি, পরক্ষণে ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য জোড়াজোড়ির এক পর্যায়ে মহিলাটির হাতে ছুরি দিয়ে আঘাত করে এবং ছুরিটি গলায় ধরে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে তার পরনে থাকা সকল কাপড় খুলে মোবাইলে ভিডিও চিত্র ধারন করে।
এবং আমির হুমকি দিতে থাকে এই ঘটনা কাউকে জানালে মোবাইলে ধারন করা ভিডিও চিত্র বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশ করে দেবে। ধর্ষক আমির চলে যাওয়ার সময় বাড়ীতে থাকা পার্শ্ববর্তী ঘরের মহিলারা ঘটনাটি টের পেয়ে বাড়ীর বাহিরে থাকা দোকানে বসা লোকজনকে বিষয়টি জানায়। গ্রামবাসীরা ধর্ষণকারী আমিরকে আটক করে গাছের সাথে বেধে পুলিশে খবর দেয়।ধর্ষণকারী আমিরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তারা। অন্যদিকে ধর্ষিতা প্রবাসীর স্ত্রী কে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ রিপোর্ট লেখার সময়ে ধর্ষণকারী আমিরকে গ্রামবাসী আটক রেখে পুলিশ কে ঘটনাটি অবহিত করে। চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসছে বলে জানা গেছে ।






একুশে মিডিয়া/এমএসএ

No comments:

Post a comment

নিউজের নীচে। বিজ্ঞাপনের জন্য খালী আছে

Pages