দোহারে রাসেল হত্যার বিচারের দাবীতে মানব বন্ধন - Ekushey Media bangla newspaper

Breaking News

Home Top Ad

এইখানেই আপনার বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ: 01915-392400

নিউজের উপরে বিজ্ঞাপন

Tuesday, 16 June 2020

দোহারে রাসেল হত্যার বিচারের দাবীতে মানব বন্ধন

মোঃ জাকির হোসেন, জেলা প্রতিনিধি:
ঢাকার দোহার উপজেলায় দুই শিক্ষার্থীর দ্বন্দে সংঘবদ্ধ হামলার ঘটনায় রাসেল(৩২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।
এ ঘটনায় নিহতের ভাই সুমন বাদী হয়ে রাত্রেই দোহার থানায় ৩৩ জনকে এজাহারনামীয় ও ১৫/২০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে মামলা দায়ের করেন।
এ ঘটনায় বিচার দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানব বন্ধন করেছে এলাকাবাসি। সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার মুকসুদপুর ইউনিয়নের মইতপাড়া গ্রামে কলেজ ছাত্র সোহান ও মনিরের মধ্যে বিরোধের জেরে গত সোমবার সকালে সংঘবদ্ধ হামলায় রাসেল (৩২) নামে এক যুবককে হত্যার ঘটনায় বিচারের দাবিতে মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় মইতপাড়া সড়কে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী।
সন্ধ্যায় ময়না তদন্ত শেষে লাশ আসলে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন স্বজনরা।
স্থানীয়রা জানান,সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার মইতপাড়া খালপাড় এলাকার মোবারক খলিফার ছেলে মনির হোসেনের সাথে একই এলাকার সাদেক ভুইয়ার ছেলে সোয়ান ও তার বন্ধুদের সাথে ঝগড়া বাধে।
এ ঘটনায় সোয়ানের পক্ষে আসা তার সহপাঠি ছাত্রলীগের নেতা-কর্মিরা মনিরের উপর হামলা চালালে প্রতিবেশী রাসেল থামাতে আসলে প্রতিপক্ষের হামলায় মাথায় আঘাত পেয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন।
বিষয়টি স্থানীয়রা দেখে উত্তেজিত হয়ে হামলাকারীদের ধাওয়া দিলে তারা সবাই মটর সাইকেল ফেলে পালিয়ে যায়।
এ সময়ে স্থানীয়রা আহত রাসেলকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।সংবাদটি দ্রু মইতপাড়া গ্রামে ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত জনতা তাদের ফেলে রাখা ৮/১০টি মটর সাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।
সংবাদ পেয়ে পুলিশ-র‌্যাব ঘটনাস্থলে পৌছে টানা দুই ঘন্টাব্যাপি অভিযান চালিয়ে সবাইকে ছত্রভঙ্গ করে দেয় এবং এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুইজনকে আটক করেন পুলিশ।
এ সময়ে দোহার ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থানে গিয়ে মটরসাইকেলের আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন এবং আগুনে ধ্বংস হওয়া মটরসাইকেলগুলি থানায় নিয়ে আসেন।
নিহত রাসেলের চাচা নাসির উদ্দিন জানান একটি ছাত্র সংগঠনের কতিপয় নেতাকর্মী আমার ভাতিজার হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত। তিনি বলেন,শাকিল,ফাহিম ও সোহানের নেতৃত্বে সোমবার সকালে ১০/১২টা মটরসাইকেল নিয়ে প্রতিবেশী মনিরকে শাসাতে আসে।
এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে সোহানের লোকজন মনিরের উপর হামলা করলে আমার ভাতিজা রাসেল তাদেরকে থামাতে গেলে তাকে সোহানের পক্ষের লোকজন লোহার পাইপ দিয়ে মাথার পিছনে আঘাত করে। এতে সাথে সাথে তার মৃত্যু ঘটে।
দোহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.সাজ্জাদ হোসেন জানান,এ ঘটনায় ৩৩ জনকে এজাহারনামীয় ও ১৫/২০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।সোমবার ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করা হয়েছে। পুলিশের তদন্ত চলমান রয়েছে বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।





একুশে মিডিয়া/এমএসএ

No comments:

Post a comment

নিউজের নীচে। বিজ্ঞাপনের জন্য খালী আছে

Pages