দিরাইয়ের এলংজুরী গ্রামে ঘূর্নিঝড়ে ৯টি পরিবারের বসতঘড় লন্ডভন্ড,১২ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি - একুশে মিডিয়া

Breaking News

Home Top Ad

এইখানেই আপনার বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ: 01915-392400

নিউজের উপরে বিজ্ঞাপন

Friday, 10 July 2020

দিরাইয়ের এলংজুরী গ্রামে ঘূর্নিঝড়ে ৯টি পরিবারের বসতঘড় লন্ডভন্ড,১২ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

একুশে মিডিয়া, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: 
প্রলয়ংকরী ঘূর্নিঝড়ে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার চরনারচর ইউনিয়নের এলংজুরী গ্রামে ৯টি বসতবাড়ি সম্পূর্ণভাবে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে।
বৃহস্পতিবার গভীর রাতে অবিরাম বৃষ্টিপাতের সাথে সাথে এই প্রলয়ংকরী ঘূর্নিঝড়টি আঘাত আনে এই এলংজুরী গ্রামে। এসে ৯জন কৃষকের বসত বাড়ি গরুর ঘরসহ ঘরে রক্ষিত শুকনো ধান ধবংসসহ প্রায় ১২ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
খবর পেয়ে শুক্রবার সকালে চরনারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রতন কুমার দাস তালুকদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং তাৎক্ষনিক বিষয়টি দিরাই উপজেলা চেয়ারম্যান,উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পিআইওকে অবহিত করেন। তখন নির্বাহী অফিসার ক্ষয়ক্ষতি নিরুপন করে পাঠানো নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
 এ সময় তার সাথে ছিলেন ইউপি সদস্যরা সহ শ্যামারচরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ আজিজুল হক,ডাঃ পীজুষ চৌধুরীসহ এলংজুরী গ্রামের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা।
ঘূর্নিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থরা হলেন এলংজুরী গ্রামের বকুল দাস,রবীন্দ্র দাস,হরিপদ দাস,অরবিন্দু দাস,জয় রানী দাস,দীপক দাস,জ্যোতিষ দাস, পংকজ দাস ও রাম দয়াল দাস প্রমুখ।
এ ব্যাপারে চরনারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রতন তালুকদার বলেছেন প্রাকৃতিক দূর্যোগ প্রবণ এলাকা হিসেবে সুনামগঞ্জের মানুষ যুগ যুগ ধরে বণ্যা,খড়া,ঘূর্নিঝড় ও ঢেউয়ের সাথে লড়াই সংগ্রাম করেই বেচেঁ আছেন।
তিনি বলেন শত প্রতিকূলতার মাঝেও সুনামগঞ্জের মানুষ প্রাকৃতিক র্দযোর্গের মাঝে জীবন সংগ্রামের লড়াইয়ে বার বার অবর্তীণ হয়ে বেচেঁ আছেন। কিন্ত এই প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের পাশাপাশি সম্প্রতি অকাল বণ্যায় আমার চরনারচর ইউনিয়নে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এবং জেলা প্রশাসক ও দিরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সহযোগিতায় একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাঁড়িয়ে ত্রান সহয়তা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হয়েছে।
তিনি বলেন গতরাতের ঘূর্নিঝড়ে এলংজুরী গ্রামে ৯টি কৃষক পরিবারের বসতবাড়ি ঘরে রক্ষিত ধান চাল সর্ম্পূণভাবে লন্ডভন্ড হয়ে পড়েছে। তিনি বলেন বন্যায় ত্রান ইউনিয়ন পরিষদে আছে তাই ক্ষতিগ্রস্থ ৯টি পরিবারের প্রত্যেককে ২০ কেজি করে চাল ও ডাল প্রদান করা হবে এবং ঘূর্নিঝড়ে কেমন ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা নিরুপন করে দিরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট পাঠানো হয়েছে।
এ ব্যাপারে দিরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শফি উল্ল্যাহ ঘূর্নিঝড়ে র ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে ত্রান দেয়া হবে এবং ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোর ঘরবাড়ি নির্মাণ করে দেয়ার জন্য প্রস্তাব মন্ত্রনালয়ে পাঠানো হবে বলেও তিনি জানান।
 
 
 
 
 
একুশে মিডিয়া/এমএসএ

No comments:

Post a comment

নিউজের নীচে। বিজ্ঞাপনের জন্য খালী আছে

Pages