লালমাই উপজেলায় শ্রীপুর গ্রামে ৫০ পরিবারের পাশে প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধা মিজানুর রহমান - Ekushey Media bangla newspaper

Breaking News

Home Top Ad

এইখানেই আপনার বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ: 01915-392400

নিউজের উপরে বিজ্ঞাপন

Sunday, 19 April 2020

লালমাই উপজেলায় শ্রীপুর গ্রামে ৫০ পরিবারের পাশে প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধা মিজানুর রহমান




এম এ হাসান, কুমিল্লা:
কুমিল্লার লালমাই উপজেলার উত্তর ভূলইন ইউনিয়ন এর শ্রীপুর গ্রামের খেটে-খাওয়া অসহায় ৫০ পরিবারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন সূদুর প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধা মিজানুর রহমান নামের এক সৌদি আরব প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধা।
বলার অপেক্ষা রাখেনা চলমান করোনা মহামারিতে যখন সমাজের বৃত্তবান দের আন্তরিক মানবিকতা হয়ে যায় লকডাউন।তখনই কতিপয় দেশের প্রকৃত সূর্য সন্তান প্রবাসীদের এমন উদ্যােগে চলমান সময়ে একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।
অনুরূপ উপজেলার উত্তর ভূলইন ইউনিয়ন এর শ্রীপুর গ্রামের কৃতি সন্তান মরহুম হাজী আব্দুর রশিদ ফাউন্ডেশন এর সাধারণ সম্পাদক সৌদি আরব প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধা মিজানুর রহমান এর নিজস্ব অর্থায়নে নিজ গ্রামের অসহায় দুঃস্থ ৫০ পরিবারের মধ্যে খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
জানা যায় লালমাই উপজেলার উত্তর ভূলইন ইউনিয়ন এর শ্রীপুর গ্রামের কৃতি সন্তান মরহুম হাজী আব্দুর রশিদ ফাউন্ডেশন এর মাধ্যমে বিভিন্ন দূর্যোগের মুহুর্তে সমাজের অসহায় দুঃস্থ নিম্নমানের খেটে-খাওয়া পরিবারের মধ্যে বিভিন্ন পর্যায়ের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে ইতিপূর্বে মরহুম হাজী আব্দুর রশিদ ফাউন্ডেশন এলকায় বেশ সুপরিচিত।
উক্ত ফাউন্ডেশন এর সাধারণ সম্পাদক বর্তমান সৌদি আরব প্রবাসী মিজানুর রহমান এর নির্দেশনায় শুক্রবার ফাউন্ডেশন এর সভাপতি ডাঃ জামাল হোসেন এর উপস্থিতি তে শ্রীপুর গ্রামের খেটে-খাওয়া অসহায় পরিবারের বাড়ী বাড়ী গিয়ে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।খাদ্য ও ইফতার সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাউল, আলু,তৈল,ডাল,ছানা ভুট,লবন,ও মুড়ি।
এসময় ফাউন্ডেশন এর সভাপতি ডাঃ জামাল হোসেন ছাড়াও উক্ত খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী বিতরণে সার্বিক সহযোগিতা করেন আলমগীর হোসেন  কবির, মোজাম্মেল হোসেন ও গ্রামের আরো অনেকে।উক্ত সংবাদ টি প্রকাশের অনুমতি চেয়ে আমাদের প্রতিনিধি যোগাযোগ করেন সূদুর সৌদি আরব প্রবাসী মিজানুর রহমান এর সাথে, এসময় তিনি জানান মূলত তারই পিতা মরহুম হাজী আব্দুর রশিদ সাহেব এর স্মরণে ব্যক্তিগত অর্থায়নে তিনি এই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন,এসময় তিনি বলেন, আসলে আমরা কোন প্রচার প্রচারণা ছাড়াই নিজের সাধ্যমতে পাশে এসে দাঁড়ানোর চেষ্টা করি,আর এটা প্রকৃতপক্ষে সকলের নিজ নিজ অবস্থান থেকে এগিয়ে আসা প্রয়োজন, কেননা আল্লাহ পাকের শুকরিয়া আদায় করে হলেও দূর্যোগের মুহুর্তে অসহায় প্রতিবেশী নিকটতম আত্মীয় স্বজনদের পাশে এসে দাঁড়ানো উচিত।
হা আমরাও ক্ষমা চেয়ে অন্যদের উৎসাহিত করার লক্ষে এই প্রচারের মাধ্যমে প্রবাসীর সাথে একমত হয়ে বলতে চাই অন্তত আর চুপচাপ থাকবেন না এমন দূর্যোগ মূহুর্তে সমাজের সকল বৃত্তবানরা।
কেননা আপনাদের মত বিত্তশালী দের দিকে তাকিয়ে আছে অসংখ্য পরিবার।আল্লাহ পাক সকল প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধা দের হেফাজত করুক-আমিন।




একুশে মিডিয়া/এমএসএ

No comments:

Post a comment

নিউজের নীচে। বিজ্ঞাপনের জন্য খালী আছে

Pages