চৌদ্দগ্রামে প্রভাবশালী কর্তৃক চলাচলের রাস্তা বন্ধ করার অভিযোগ - Ekushey Media bangla newspaper

Breaking News

Home Top Ad

এইখানেই আপনার বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ: 01915-392400

নিউজের উপরে বিজ্ঞাপন

Tuesday, 14 April 2020

চৌদ্দগ্রামে প্রভাবশালী কর্তৃক চলাচলের রাস্তা বন্ধ করার অভিযোগ


এম এ হাসান, কুমিল্লা:
কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের ঘোলপাশা ইউনিয়নের ধনুসাড়া গ্রামে দেয়াল তুলে ও সীমানা পিলার দিয়ে জনসাধারণের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় ভুক্তভোগীরা।
মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) দুপুরে এলাকা ঘুরে জানা গেছে, ধনুসাড়া পশ্চিম পাড়ার একটি স্থানে মৃত হিরমত আলীর ছেলে রুহুল আমিন গং, মৃত আফাজ উদ্দীনের ছেলে কুরবত মিয়া গং এবং  আরেকটি স্থানে মৃত আতর ইসলোমের ছেলে শামসুল হক-মহিন গং, মৃত জবেদ আলীর ছেলে আমান, জসিম, এনাম গংরা প্রায় পাঁচ শতাধিক পরিবারের দীর্ঘদিনের চলাচলের রাস্তায় দেয়াল ও সীমানা পিলার দিয়ে রাস্তা বন্ধ করে দেয়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় অনেকেই সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, অনেক বছর ধরে মানুষ ওই রাস্তা দিয়ে চলাচল করছে। এই রাস্তা দিয়েই গ্রামের কৃষকেরা পশ্চিম পাশের কৃষি জমিতে ফসল ফলানো ও আনা নেয়ার জন্য যাতায়াত করতো। কিন্তু হঠাৎ করেই রাস্তার পাশের জায়গার মালিকরা নিজেদের ছোট খাটো বিরোধের জেরে চলাচলের ওই রাস্তায় দেয়াল ও সীমানা পিলার দিয়ে সাধারণ মানুষের যাতায়াত বন্ধ করে দেয়। আর মাত্র দুই সপ্তাহ পরেই কৃষকেরা ফসল তুলবে ঘরে।
ফলে বিকল্প কোনো রাস্তা না থাকায় ফসল উৎপাদন ও আনা নেয়ার ক্ষেত্রে এখন সকলকেই চলাচলে কষ্ট ভোগ করতে হবে। তাই চলাচলের পুরনো রাস্তাটি সকলের জন্য পূনরায় উন্মুক্ত করে দিতে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সহ প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করছেন ভুক্তভোগিরা। এদিকে গ্রামের ভেতরে মুরগীর খামার তৈরী করে পরিবেশের ভিষণ ক্ষতি সাধন করছেন স্থানীয় মৃত আতর ইসলামের ছেলে শামসুল হক।
গ্রামবাসিরা প্রতিবাদ করলেও তিনি প্রভাব খাটিয়ে বিগত পাঁচ-ছয় বছর পূর্বে খামারটি প্রতিষ্ঠা করেন এখানে। এতে খামারের ময়লা-আবর্জনার দূর্গন্ধে এলাকায় বসবাস করা কষ্ট সাধ্য হয়ে পড়েছে। আশেপাশের বাড়ীর লোকজন এবিষয়ে প্রতিবাদ করেও কোন প্রতিকার পাননি বলে অভিযোগ রয়েছে। এবিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. জালালের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান, “দীর্ঘদিনের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করার অভিযোগটি সত্য। এটি মূলত বড় কোন রাস্তা ছিলনা, কৃষি জমিতে যাওয়ার জন্য একটি মোটা আইল ছিল। গ্রামের প্রায় দুই হাজার কৃষক এ পথ দিয়ে তাদের কৃষি জমিতে যাতায়াত করতো। আশেপাশের জমিনের মালিকরা নিজেদের সীমানায় বাড়ী ও দেয়াল নির্মাণ করায় এখন রাস্তা বন্ধ হয়ে গেছে।
অনেকেই আবার তাদের সীমানায় পিলার এবং গাছ লাগিয়ে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে। জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমি চেষ্টা করেছি বিষয়টির সুন্দর নিস্পত্তি করে দিতে। এ লক্ষ্যে ইউপি চেয়ারম্যানও কয়েকবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অভিযুক্তদের অনুরোধ করেন সবার সাথে পরামর্শ করে সাধারণ মানুষের চলাচলের জন্য রাস্তাটি পূণরায় খুলে করে দিতে। প্রয়োজনে ভুক্তভোগিরা রাস্তার জন্য টাকা দিয়ে জায়গা কিনবে। কিন্তু যাদের জায়গা তারা না ছাড়লে আমাদের কি করণীয় আছে।
এদিকে গ্রামের ভেতরে মুরগীর খামার দিয়ে পরিবেশ দূষণ করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জনবহুল এলাকায় খামার প্রতিষ্ঠার ফলে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে। ভুক্তভোগিরা অভিযোগ করলে এবিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার চেষ্টা করবো।



একুশে মিডিয়া/এমএসএ

No comments:

Post a comment

নিউজের নীচে। বিজ্ঞাপনের জন্য খালী আছে

Pages