ভোলার রাজাপুরে গৃহবধূর কাছ থেকে মিথ্যা ছলনায় টাকা হাতিয়ে নিয়েছে কিশোর'রা - Ekushey Media bangla newspaper

Breaking News

Home Top Ad

এইখানেই আপনার বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ: 01915-392400

নিউজের উপরে বিজ্ঞাপন

Saturday, 25 April 2020

ভোলার রাজাপুরে গৃহবধূর কাছ থেকে মিথ্যা ছলনায় টাকা হাতিয়ে নিয়েছে কিশোর'রা


মোঃ ইব্রাহীম সোহেল, ভোলা:
ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের প্রবাসী শাহাবুদ্দিনের স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের কাছ থেকে মিথ্যা ছলনা করে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে স্থানীয় বখাটে কিশোর'রা টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে ওই গৃহবধূর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
ভুক্তভোগী গৃহবধূ জানান, স্থানীয় আবুল কালাম বয়াতির ছেলে লোকমান ও একই ওয়ার্ডের ফারুকের ছেলে বিল্লাল বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে আমার বাড়িতে বেড়াতে আসা আমার ভাগিনা ও আমার ৭বছরের ছোট মেয়ে বাড়ির পাশের ফসলি জমিতে ঘুরতে যান।
সেসময় তাদেরকে  ভুট্টা খেতে অশ্লীল ভাবে দেখেছে এমন অপবাদ দেয় বিল্লাল ও লোকমান। মিথ্যা অপবাদ দেওয়ার পাশাপাশি ওই দুই কিশোর স্থানীয় আরও কিছু কিশোরদের একত্রিত করেন। যাদের মধ্যে ছিলো, কাসেম মাঝির ছেলে রাব্বি, আবদুল মান্নানের ছেলে আবদুল রশিদ, হারুনের ছেলে মামুন, আলাউদ্দিনের ছেলে রিয়াজ ও জাহাঙ্গীরের ছেলে সাব্বিরসহ আরও ৪/৫ জন। 
পরে উপস্থিত সকল কিশোর এবিষয়ে বাড়াবাড়ি করলে সাংবাদিক পুলিশ আনবে এমন হুমকি দেন গৃহবধূ মনোয়ারা বেগমকে। 
এক পর্যায়ে সকল কিশোরদের মধ্যে স্থানীয় বখাটে কিশোর রাব্বি সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে তাদের কাছ থেকে এক হাজার ৫শ' টাকা হাতিয়ে নেন। এবং টাকা নেওয়ার বিষয়ে কাউকে জানালে আরও মিথ্যা অপবাদ দিবে এমন হুমকি দেন কিশোর'রা।
পরে বখাটে কিশোর দল সেই টাকা নিজের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা করে নেন।
অভিযোগ রয়েছে এই কিশোরদল স্থানীয় পর্যায়ে একাধিক চুরি ও ইভটিজিংয়ের সাথে জড়িত রয়েছেন।          
মিথ্যা ছলনায় ও সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পরেরদিন ওই গৃহবধূ জানেন এটা মিথ্যা ও সাজানো নাটক। আসলে কোন সাংবাদিক ওই সময় আসেননি।
পরে গৃহবধূ স্থানীয় ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদককে এ বিষয়টি জানিয়েও কোন বিচার না পেয়ে পরে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের দারস্থ হন।
এবিষয়ে অভিযুক্ত কিশোরদের কাছে জানতে চাইলে তারা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, টাকা নেওয়ার বিষয়টি সঠিক। তবে সাংবাদিক পরিচয়ে নয়।       
স্থানীয় ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মন্নান বলেন, ঘটনাটা খুবই দুঃখজনক। গণমাধ্যম কর্মীদের পরিচয় দিয়ে এমন কাজটা করা কখনো মানিয়ে নেওয়ার মতো না। আমরা গৃহবধূকে বলেছি থানার দারস্থ হতে।



একুশে মিডিয়া/এমএসএ

No comments:

Post a comment

নিউজের নীচে। বিজ্ঞাপনের জন্য খালী আছে

Pages